খালেদাকে ‘টুস’ করে ফেলে দিতে চাওয়া বক্তব্যের প্রতিবাদ ছাত্রদলের।

খালেদাকে ‘টুস’ করে ফেলে দিতে চাওয়া বক্তব্যের প্রতিবাদ ছাত্রদলের।

‘পদ্মা সেতুতে নিয়ে খালেদাকে টুস করে ফেলে দেওয়া উচিত’— প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল।

রোববার (২২ মে) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে এ কর্মসূচি পালন করে ছাত্রদল। এছাড়া সমাবেশে ছাত্রদল সভাপতি রওনকুল ইসলাম শ্রাবণের ওপর পুলিশি হামলার প্রতিবাদ ও আটক নেতাকর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানান ছাত্রদল নেতারা।

ADVERTISEMENT

বিক্ষোভ সমাবেশে ছাত্রদল সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিব, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার আহ্বায়ক আখতার হোসেন, সদস্য সচিব আমানউল্লাহ আমানসহ ছাত্রদলের কেন্দ্রীয়, ঢাবি শাখাসহ বিভিন্ন ইউনিটের পাঁচ শতাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

dhakapost

সমাবেশে সাইফ মাহমুদ জুয়েল বলেন, ‘অনেকে মনে করেছেন আমরা এই তপ্ত রোদে উত্তপ্ত। শেখ হাসিনা তুমি আমাদের হৃদয়ে আঘাত করেছ। আমাদের আদর্শিক মাকে নিয়ে কটূক্তি করেছ। তাই আমরা উত্তপ্ত। কত রক্ত চাই তোমার? ছাত্রদল রক্ত দিতে প্রস্তুত রয়েছে। কিন্তু আমাদের আবেগ, আমাদের আদর্শিক মা বেগম জিয়াকে নিয়ে কটূক্তি করার চেষ্টা করো না।’

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, ‘ওয়ান ইলেভেনে বেগম খালেদা জিয়ার কারণে তুমি দেশে আসতে পেরেছ। সেই বেগম জিয়াকে নিয়ে কটূক্তি করতে তোমার লাগে না। তুমি বিবেক বিবর্জিত একজন মানুষ। শেখ হাসিনা যদি সৎ সাহস থাকে তাহলে জাতীয়তাবাদী দল দরকার নেই, জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলকে পারলে রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলা করো। কিন্তু তুমি তা পারবে না। কারণ তোমার আচরণ কাপুরুষোচিত আচরণ। তুমি প্রশাসনের শক্তিকে অপব্যবহার করে আওয়ামী লীগের কাজে লাগাচ্ছ।’

ADVERTISEMENT

রওনকুল ইসলাম শ্রাবণের ওপর বার বার আক্রমণ করার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘তোমরা ঘোষণা করো কোথায় জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলকে প্রতিহত করতে চাও। কথা দিচ্ছি সেখানেই ছাত্রদল তোমাদের প্রতিরোধ করবে। আটক নেতাকর্মীদের মুক্তি দাও, পুলিশ দিয়ে হয়রানি বন্ধ করো। না হয় ছাত্রদল পাল্টা প্রতিরোধ করতে জানে।’


Leave a Reply

Your email address will not be published.